হ্যাস ট্যাগ me too

শ্রাবনী সোম যশ

হ্যাস ট্যাগ me too
(36)
পাঠক সংখ্যা − 705
পড়ুন

সারাংশ লিখুন

"গোপন কথাটি রবে না গোপনে, সত্যিই কি আর গোপন থাকবেনা ! আমিও কি সত্যিই পারবো বলতে আমার কথা ? এইসব সাত-পাঁচ ভাবছিলো নিজের মনেই নিশা। সেই ছোট থেকেই শুনে আসছে, সে কুশ্রী। এই নিয়েই বড় হওয়া আর আজ প্রাপ্তবয়স্ক, সাথে প্রাপ্তমনস্ক ও হয়তো; " কি রে তোর নাম টা কি তোর গায়ের রং দেখে?" বা " কি রে তোর দাঁতে বেশ রোদ হাওয়া বেশি লাগে বল " এগুলো নিশা রোজই শোনে স্কুলের গন্ডি পেরোনোর আগে থেকেই। যে মা নিশা কে আলো দেখিয়েছে সেও হয়তো কখনো সখনো বলেই ফেলে " নিশু তোর জামা কেনা এক ঝকমারি, কি যে মানায় তোকে .... হেসে ফেলে নিশা। বেচারি মা এ দোকান সে দোকান ঘুরে মানানসই পোশাক খোঁজে; কিন্তু বুকের মাঝে লাল কৌটোয় যে কথাগুলো ভোমরা হয়ে গুমরে আছে , সে কথা তো তার একান্তই নিজের। যা কোনোদিন নিজের মা’কেও বলতে পারেনি সে, পাছে মাও ভুল বুঝে বলে দেয় - ওই তো ছিরি, কার দায় পড়েছে বাছা তোমাকে দেখতে। নিশা বলতে পারেনা কাউকে, যে কিশোরীবেলা থেকেই সেও দলিত, সেও মথিত। কালো কুশ্রী মুখটার দিকে না তাকিয়েও কত পুরুষ কত অবলীলায় লালসার হাত এগিয়ে দিয়েছে বহুবার, না না তারা কোনোদিনই এই কালো মেয়েটিকে বিয়ের কথা ভাববেনা, কিন্তু ভোগ্য ভাবতে ক্ষতি কি ? আজ সবাই অকপটে বলতে পারছে গোপন যাতনার কথা। কিন্তু নিশা পারছেনা তথাকথিত পুরুষ জাতির প্রতি আঙ্গুল তুলতে। পারছে না, নারী জাতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে। প্রতিনিয়তই যত না শারীরিক তার থেকে অনেক বেশি মানসিক নির্যাতনের শিকার সে, নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সেই ফুল-পাতা আঁকা টেপজামা পরে খেলার সময় থেকেই কেউ বা কারা তাকে সুশ্রী-কুশ্রীর ফারাকটা বুঝিয়ে দিয়েছিলো। বাঁকা চাউনি, মুখ টেপা হাসিতে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছিল বাস্তবিকই সে কুশ্রী। ছোট পিসির বিয়ের দিন নিশাই তো সবার আগে প্রস্তুত হয়েছিল সেজে গুজে, বরযাত্রীদের তিতলি গোলাপ দেবে আর সে দাঁড়াবে থালা নিয়ে। কিন্তু ছোট কাকী সেটাও হতে দিলোনা। বলেই ফেললো কথাটা, - তুই আবার গোলাপি চুড়িদার পড়তে গেলি কেন? ঠিক আছে তুই বরং ভেতরেই থাক ওই ফুলটুল দেওয়া তিতলিই সামলে নেবে। হাসতে হাসতেই নিশা জেনে গেছি’ল সেদিন কৃষ্ণ অঙ্গে গোলাপি রঙ শোভা পায় না। সেদিনও নিশা সেই নির্যাতনের প্রতিবাদে বলতে পারেনি - me too। কিন্তু আজ অনুপ্রাণিত নিশা সবাইকে বলতে চায়, নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সবাইকে বলতে চায় me too ......me too ....me too ....হ্যাঁ হ্যাঁ ঠিকই শুনছো সবাই শোনো ...নারী- পুরুষ সবাই শোনো #me too ......

রিভিউসমূহ

রিভিউ দিন
কৌশিক ভট্টাচার্য্য
ভালো হয়েছে লেখাটা
প্রত্যুত্তর
Nabanita Saha
Darun. . Sotti i tai.. . . Sundori na hle esb i sunte hoi. .
প্রত্যুত্তর
শ্রীমান কৌশিক রায়
অসাধারণ লিখেন আপনি। আমার "মধ্যরাতের সরবত বিক্রেতা" পড়ার আমন্ত্রণ রইলো।
প্রত্যুত্তর
Chiranjit Saha
Khub valo inspiring
প্রত্যুত্তর
তারানা বৃষ্টি
তথাকথিত সুন্দরী ছাড়া সব মেয়েদের গল্প এমনই ।
প্রত্যুত্তর
AAYUSI GHOSH
vlo
প্রত্যুত্তর
Twisha Chakraborti
sundar
প্রত্যুত্তর
Subhasree chatterjee
Share na kore prlm na
প্রত্যুত্তর
সকল টিপ্পনী দেখুন
bengali@pratilipi.com
080 41710149
সোশাল মিডিয়াতে আমাদের ফলো করুন
     

আমাদের সম্পর্কে
আমাদের সাথে কাজ করুন
গোপনীয়তা নীতি
পরিষেবার শর্ত
© 2017 Nasadiya Tech. Pvt. Ltd.