অমানুষ

এইমাত্র খবরটা পেল অরূপ। শংকরদা মারা গেছেন। তার ডিপার্টমেন্টের বড়বাবু। কিছুদিন ধরেই ভুগছিলেন। একটু আগে সব শেষ। মনটা খুব খারাপ হয়ে গেল। তার সঙ্গে একটু কি খুশিও হলো অরূপ? . শংকরদা নিঃসন্তান । সংসার বলতে শুধু বৌদি আর তিনি। খেলা পাগল মানুষ। সব সময় মুখে খেলার কথা। বার্সা, রিয়াল, চেলসি। অরূপও খেলা পাগল। তাই অরূপকেও খুব ভালবাসতেন। অরূপ তখনও পার্মানেন্ট হয়নি, অল্প বেতন। কতবার যে হাত পেতেছে। কোনদিন ফেরাননি। আবার নিজেই লেগে থেকে চাকরিটা পাকা করিয়েছেন। . শ্রেয়া বিয়ের জন্য খুব চাপ দিচ্ছিল। কিন্তু অনুষ্ঠান করে বিয়ে করা প্রচুর খরচের ব্যাপার। শংকরদাকেই গিয়ে ধরল অরূপ। শংকরদা সব শুনে পরের দিন আসতে বললেন। তখনই শংকরদার একটু একটু শরীর খারাপ। পরদিন যেতে শংকরদা বৌদির আড়ালে পঞ্চাশ হাজার টাকা দিলেন। আর বৌদিকে বলতে বারণ করে দিলেন। বিয়েতে আসতে পারেননি, কিন্তু ফোন করে খবর নিয়েছেন। ....বৌদি জানেন না। যাক্, টাকাটা আর অরূপকে ফেরৎ দিতে হবে না। মৃত্যুর খবরটা পেয়ে ওইজন্য কি একটু আনন্দও হলো? . শ্রেয়াকে অরূপ বলল, "আমাকে এখন শ্মশানে যেতে হবে।" শ্রেয়া শংকরদার কথা সব জানে। শ্রেয়া বলল, " দেখো, আমার মনে হয় না যাওয়াই ভালো। ওনার স্ত্রীকে যখন না জানিয়ে টাকাটা দিয়েছেন, তখন আর ওবাড়ি মাড়িও না। তুমি যা পেট পাতলা, পঞ্চাশ হাজারের ধারের কথাটা তুমিই হয়ত বলে দেবে।" ওহ্ শ্রেয়ার কী বুদ্ধি। ঠিকই বলেছে। ওদিক না মাড়ানোই ভালো। শংকরদার শেষ যাত্রায় সঙ্গী হলো না অরূপ। . কিন্তু কয়েকদিন পরেই শংকরদার স্ত্রী একজনকে দিয়ে অরূপকে ডেকে পাঠালেন। শ্রেয়া বলল," ডাকুক গে। তুমি যাবে না। চুপ করে বসে থাকো। তুমি টাকা নাওনি ব্যাস্।" . যেতে হোলো না। বারবার ডেকেও না যাওয়ায় শংকরদার স্ত্রীই একদিন হাজির হলেন। সন্ধ্যেবেলা। অরূপ ঘরেই ছিল। বললেন," আমি অনেকবার করে ডাকলাম তুমি এলেনা আমাকেই তাই আসতে হোলো।" মাথা চুলকে অরূপ কিছু একটা বলতে যাচ্ছিল কিন্তু ওকে থামিয়ে দিয়ে শ্রেয়া বলল, " আর বলবেন না ওর যা শরীর খারাপ গেল, ডাক্তার তো.." শ্রেয়ার কথা শেষ হওয়ার আগেই বৌদি বললেন, "এই খামটা উনি অরূপকে দিতে বলেছিলেন। কি আছে খামে আমি জানিনা। কিন্তু উনি বলেছিলেন তাই আমি দিয়ে গেলাম।" বলেই চলে গেলেন। . খামটা শ্রেয়াই খুলল। দশটা হাজার টাকার নোট আর একটা চিরকুট। তাতে জড়িয়ে জড়িয়ে লেখা, "বিয়েতেই সব টাকা খরচ করে দিয়েছিস জানি। এই টাকায় সামনে কোথাও থেকে হানিমুন করে আসিস।" ব্যাস্, এই টুকুই। .... চিরকুটটা মাথায় ঠেকাল অরূপ তারপর ঘড়ঘড়ে গলায় বলল, "আমি একটা অমানুষ..আমায় ক্ষমা করে দাও শংকরদা.."

===================================================

bengali@pratilipi.com
080 41710149
সোশাল মিডিয়াতে আমাদের ফলো করুন
     

আমাদের সম্পর্কে
আমাদের সাথে কাজ করুন
গোপনীয়তা নীতি
পরিষেবার শর্ত
© 2017 Nasadiya Tech. Pvt. Ltd.