বিস্কোরণ

গতকাল বিকেলে ব্যবসার কাজ সেরে বাড়ি ফেরার সময় পচা এক ডজন ডিম ষাট টাকার বিনিময়ে কিনে বাড়িতে হাজির হয়। গিন্নি র হাতে ডিম গুলো দিয়ে বলে, " আজ কা আমারে ডবল ডিমের মামলেট কইরা দাও, রাতে খামু"।

গিন্নি বলেন, "কি গো এখন গরম পড়ছে, আবার টি ভি তে দেখলাম নকল চাইনিজ ডিমের কথা ও বলছিলো।

এর মধ্যে হঠাৎ তোমার আবার ডিম খাবার শখ হলো কেন গো?"

"আরে গিন্নি ফিরার পথে বাজারে দেখি, গরম গরম মামলেট আর পরোটা। আহা কি গন্ধ, এ হেন আমার নাকে লাইগা আছে। আমি আর লুভ সামলাইতা পাইরলাম না, লয়া আইলাম। বারো খান"।

"আমাদের মাছ আছে। তুমি ই শুধু খাবে। বাবু আর আমি মাছ ভাত খাবো" গিন্নি সহাস্যে বলে।

আহা! মানুষ টার খাওয়ার একটু শখ হয়েছে। গিন্নি সযত্নে গোটা ছয় পরোটা আর ডবল ডিমের ওমলেট পচা কে বানিয়ে দেয়। সাথে আধখানা পেঁয়াজ।

পচা মহা আনন্দে পরোটা আর মামলেট ( আমরা যাকে ওমলেট বলি) সহযোগে রাত্রের খাবার খায়। তারপর রাত্রি এগারোটা নাগাদ শুতে যায়। পচার ছোট্ট সংসার। ছেলে আর বৌ। সে গিয়ে গিন্নি র পাশে শুয়ে পড়ল। বাবু তখন অবধি ঘুমাই নি।

অঘটন টা তখন থেকেই শুরু হলো। পচার পেটের ভেতরে কেমন যেন ঘুরপাক খাওয়া শুরু হল। গুরু গুরু আওয়াজ। আর তারপরেই শুরু বিস্কোরণ। যেমন তার আওয়াজ তেমনি তার তিব্র গন্ধ। আওয়াজ যদিও গিন্নি সহ্য করে। গন্ধ কেমনে। গিন্নি আর বাবু তো চেঁচামেচি জুড়ে দেয়।

পচার এমন মনে হয়, যেন নিজের নাক নিজেই কেটে ফেলে।

"কি গো গিন্নি, এ নিশ্চয়ই চাইনিজ ডিম হইব। নইলে এ হেন বিস্কোরণ"! পচা পেট ধরে বলে।

গিন্নি হাসবে না কাঁদবে বুঝতে পারে না। শুধু নাকে চাপা দিয়ে বলে, "তুমি এক কাজ করো বালিশ চাদর নিয়ে আজকের মতো একটু বারান্দায় কাটাও। কাল সকালে ঠিক হয়ে গেল ভালো। না হলে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যাবো"।

বলতে বলতে আবার একটা। আর ফলাফল সেই একই রকম। পচা লজ্জায় রাগে বালিশ চাদর নিয়ে বাইরে যায়। যেতে যেতে বলে, " হায় রে চায়না, তোগো কি, আমাগো সুখ সহ্য হয় না"। বাইরে গিয়ে ও শান্তি কই। আবার.......

এই ভাবে কিছুক্ষণ যাবার পর, আস্তে আস্তে পচার বিস্কোরণ কমে। ও ধীর পায়ে ঘরে ঢুকে গিন্নি র পাশে শোয়। আর বলে, " গিন্নি দেউখো কাল আমি এইটার বিহীত করুম একটা"।

সকালে ঘুম থেকে উঠে গিন্নি দেখে পচা নেই। মোবাইল টা ও রেখে গেছে। ডিম গুলো উধাও। গেল কোথায় লোকটা। শরীর খারাপ হলো নাকি। সাত পাঁচ ভাবতে থাকে গিন্নি। ছেলেকে ভাবছে বলে, " যা তো বাবু একটু দেখে আয়"।

ঠিক তখনই পচার গলার আওয়াজ, " এই হানে আইস গিন্নি তাড়াতাড়ি, দেখো চাইনিজ গো কেমন ডান্ডা দেছি। এখনো পেট টা হালকা হালকা মুচর মারতাছে গো"।

গিন্নি গিয়ে দেখে একটা বড় খাঁচা আর তার মধ্যে একটা মোড়গ আর মুর্গি। "দেখো আর চিন্তা নাই। এই বার যত খুশি বানাক হালার পো গুলান চাইনিজ ডিম। আমার কিছুটি বিগরাইতে আর পারবো না ওরা। হালা বাঙালের সাথে পাঙগা"।পচা বুক ফুলিয়ে বলে আর একটু পেটের উপরে হাত বুলাতে থাকে।

গিন্নি মুখে আঁচল চাপা দিয়ে হাসতে হাসতে বলে ওঠে, " বাবু, তোর বাবার কান্ড দেখে যা।" ছেলে ছুটে এসে খাঁচার মধ্যে মোড়গ আর মুর্গি দেখে খুব মজা পায়। আনন্দে লাফাতে থাকে।

সমাপ্ত

bengali@pratilipi.com
080 41710149
সোশাল মিডিয়াতে আমাদের ফলো করুন
     

আমাদের সম্পর্কে
আমাদের সাথে কাজ করুন
গোপনীয়তা নীতি
পরিষেবার শর্ত
© 2017 Nasadiya Tech. Pvt. Ltd.