এরপর...



#এরপর ১

~~~~~~~

সকাল থেকে বৃষ্টি হচ্ছে। (জানালার ভিউ) কতক্ষণ আর শুয়ে শুয়ে ফেবু করা যায়। (টপ ভিউ) একটু জানলায় গিয়ে দাঁড়ালো ডালিম। ডালিম সাদা জামা আর শর্ট জিন্স প্যান্ট পরে। (ব্যাক ভিউ) একটা রোগা মতো ছেলে নিচে রাস্তায় ঘুরছে আর সিগারেট খাচ্ছে। (টপ ভিউ) কিছুক্ষণ সবুজ গাছ দেখল ডালিম। (ব্যাক ভিউ) শালিক পাখি বাসা করেছে উল্টোদিকের ফ্ল্যাটের কোটরে। ধুর সকাল সকাল এক শালিক। ডালিম লক্ষ্যই করেনি ছেলেটা তাকেই দেখছে। (ক্লোজ ভিউ) কিছুক্ষণ ধরে নিচের ছেলেটি তাকেই ফলো করছে। (আপ ভিউ) আবার বৃষ্টিটা কমায় এখন ফটো তুলছে। ডালিম বুঝল মুশকিল।(ক্লোজ ভিউ) সকাল সকাল এসব ভালো লাগে।...কষ্ট হচ্ছে! ঝিলিক বলল। (ক্লোজআপে ঝিলিকের ঠোঁট দেখা যাচ্ছে) চুলটা উঁচু করে নট করা। আস্তে আস্তে হাসিটা দেখা গেলো। এরপর লং শট...দূরে রাস্তাটা দেখা যাচ্ছে। দুটি মেয়ে কফি মাগ হাতে দাঁড়িয়ে। ঝিলিকের থেকে ডালিমের চুল ছোটো। কালার করা। ডালিমের চোখগুলো বেশি টানা টানা। দু’জনে গল্প করছে।

(টপ ভিউ) ঝিলিক চেঁচিয়ে বলল – ও দাদা ছবি তুলতে হলে উপরে আসুন। ভাল করে পোজ দেবো। (ক্লোজআপে ছেলেটির মুখ) ঘাম মুছতে মুছতে বলল – না না আমি আপনাদের ছবি তুলিনি। আমি একজন ফ্ল্যাটের এস্টিমেটার। আপনাদের নিচের ফ্ল্যাটটি বিক্রি হবে। ঐ মালিক এখানে দাঁড়াতে বলেছে। মিসেস মুখার্জি এক্ষুনি আসবেন।

*কাট*

জোড়ে বেলের শব্দ। ঝিলিক মার্বেলের ডাইনিং পেরিয়ে যাচ্ছে। (লো অ্যাংগেল ভিউ) পায়ের চটিটা স্পষ্ট। গেটে লক (ক্লোজ আপ)। গেট খুলল। ছেলেটির হাফবাস্ট। হাফাচ্ছে। আমি বিপদে পড়েছি। মিস মুখার্জি ফ্ল্যাটের মধ্যে মারা গেছেন। আমি তো ফেসে গেলাম। (ঝিলিকের মুখ) আঁতকে উঠে কী বলছেন!! কী করেছিস তুই!! স্কাউন্ড্রেল। (ক্যামেরা ঘুরল) ছেলেটি বলল...না আমি কিছু করিনি। উনি লেট করে এলেন। খুব হাফাচ্ছিল। ফ্ল্যাটে তালা খুলে ঢুকেই একটা ছবি দেখে আঁতকে উঠে চিৎকার করে মাটিতে লুটিয়ে পড়ল। ডালিমও ছুঁটে এসেছে।

*কাট*

(চলন্ত ক্যামেরা) মিসেস মুখার্জির ফ্ল্যাট। একইরকম। তবে ফ্ল্যাটে আসবাব কম। পুরোনো কাপড় দিয়ে ঢাকা। কিন্তু ছেলেটি যে ছবিটার কথা বলল সেটা নেই। দেওয়ালের (ক্লোজআপ) ছবির দাগ রয়েছে। ছেলেটি বলল ছবিটা এক ভদ্রলোকের ছিল। ঝিলিকের দিকে তাকিয়ে বলল আমার নাম সুমন্ত্র সান্যাল। এখন তো পুলিশ কেস। বিশ্বাস করুন আমি কিছু করিনি। (হিডেন ক্যামেরা)। ছেলেটা দেওয়ালে ঘুষি মারল। ঝিলিক বলল – শান্ত হন। দেখছি। আমার কাকা পুলিশ অফিসার। কল করল। কাকা শুনে ফোর্স পাঠানোর কথা বলল। (লং শর্ট)। ডালিম চুপ করে দাঁড়িয়ে। ব্যালকনি দিয়ে বাইরেটা দেখছে। একটা গাড়ি বেরিয়ে গেল। নম্বরটা কী ডালিম দেখেছিল? (টপ শটে একটা ছবি ক্লিক করল ডালিম) (লং শট) ঝিলিক চেঁচিয়ে বলল ছবি দেখে কেউ মারা যান। উনি তো বেঁচে থাকতে পারে। আমি ডাক্তার কাকুকে ডাকছি। (ক্লোজ শট) সুমন্ত্র মিসেস মুখার্জির পালস দেখল। (লং শটে মুখে হাসি)। বেঁচে আছে। ডালিম রাবিস বলে বেরিয়ে গেল। ঝিলিক বলল আপনি ওয়েট করুন আসছি।

*কাট*

(লংশট) পুলিশ এসেছে। ডাক্তারের দেখা হয়ে গেছে। তবে সুমন্ত্র সেই ছবি খুঁজছে। শেষে পুলিশ অফিসার দাসবাবু বললেন ওটা স্কেচ করিয়ে নেব। এখানে ভিকটিমের বয়ানটা আসল। মুখার্জি ম্যাডাম (ক্লোজশট)। বললেন ঐ শয়তানটা এই ফ্ল্যাটে খোঁজ কি করে পেলো!! (লংশটে দাসবাবু জিগ্যেস করল) -- কে শয়তান? আমার মৃত স্বামী। সুমন্ত্র বলল -- মানে? আমরা ভূতের ছবি দেখলাম। হতেই পারে না। ছবি তো ছবি। আর যদি ছবিটা থাকেও ভয়ের কী আছে? মৌরিমা মুখার্জি বলল -- আছে। কারণ ও মারা গ্যাছে মুম্বাইয়ে। আর এই ফ্ল্যাটে ওর কোনও ছবি ছিল না। এটা জাস্ট বন্ধই থাকত। (ক্যামেরা আসতে আসতে ঘুরছে) ডালিম দাসবাবুকে গাড়ির ছবিটা দিল। পুলিশ নিচে সিকিউরিটি গার্ডকে প্রশ্ন করবে বলে চলে গেল। ঝিলিক বলল সুমন্ত্র আমার নাম্বারটা রাখুন। আমি এখন একটু কলেজে যাব। বলে ফ্ল্যাটে ফিরে গেল। কিন্তু উঠেই দৌড়ে নেমে এলো। ডালিম নাকি মাটি পরে আছে। আর ফোনটা কেউ ভেঙে দিয়েছে। ঘরের ড্রয়িং কাম ডাইনিং লন্ডভন্ড। দাসবাবুকে চেঁচিয়ে ডাকল।

*কাট*

(লংশট) জ্ঞান এসেছে। ডালিম ভয়ে ভয়ে গোগাতে গোগাতে বলল আমি নিচ থেকে উপরে এসে গেট খুলতেই একজন লোক তার ফোনটা নিয়ে ভেঙে দিল। আর এমন করে চেপে ধরল ঘাড় মটকে যে মারা যায়নি এটাই বিশাল ব্যাপার। কেঁদে ফেলল ডালিম। ঝিলিক ওকে সামলালো। (ক্যামেরা তখন এলোমেলো করা জিনিসগুলো দেখালো) মেঝেতে রক্তের দাগ। দাগগুলো মনে হচ্ছে জন্তুর। কিন্তু ডালিম তো বলছে একটা লোক। ডালিমের দিকে ক্যামেরা। ডালিম বলল মুখটা মানুষের। নিচে গোরিলার ড্রেস পরেছিল। দাসবাবু বলল ফরেন্সিক আসুক। ছবিগুলো স্কেচ করাতে হবে। এরমধ্যে কাকাবাবু এসে দরজায় দিয়ে ঢুকল। ক্লোজআপে কাকাবাবু। দাসবাবু স্যালুট জানালো। খুব জোড়ে রান্না ঘরের দিক থেকে কাঁচ ভাঙার আওয়াজ এলো। ক্যামেরায় দৌঁড়ে গিয়ে দেখা গেলো... ম্যারিনেট করা মুরগি মাংসগুলো কেউ খেয়েছে। হারগুলো এদিক ওদিক। ঝিলিকের মুখ লং থেকে ফোকাস হল ....চেঁচিয়ে বলে উঠল দিস ইজ ইভিল। (ক্যামেরা ক্লোজ) সুমন্ত্র বলে উঠল – ভূত!! (চলন্ত ক্যামেরা) মৌরিমা মুখার্জি কাঁপতে কাঁপতে গিয়ে সোফায় বসে পড়ে বলল -- ও মরেনি? বলে হাউ হাউ করে কাঁদতে লাগল।


bengali@pratilipi.com
080 41710149
সোশাল মিডিয়াতে আমাদের ফলো করুন
     

আমাদের সম্পর্কে
আমাদের সাথে কাজ করুন
গোপনীয়তা নীতি
পরিষেবার শর্ত
© 2017 Nasadiya Tech. Pvt. Ltd.