সুজন

প্রাইমারী স্কুল থেকেই আমার একমাত্র শত্রু ছিল সুজন।প্রথম দিনেই বসার জায়গা নিয়ে বচসা প্রায় হাতাহাতি হওয়ার পর্যায়।স্যারের আগমনে তখনের মতো শান্ত হলেও আমার পছন্দের প্রথম বেঞ্চের ধারে বসতে না পারার রাগটা জমা ছিল। টিফিনের সময় দিলাম ধাক্কা বেচারীর টিফিন বক্স উল্টে গিয়ে একদম মেঝে ভর্তি হলো।কাঁদো কাঁদো মুখ করে আমার দিকে তাকাতে আমি বিজয়ীর হাসি হেসে নিজের টিফিন খেতে থাকি।পরের দিন থেকে আমি পছন্দের জায়গায় বসার জন্য আগে থেকে আসতাম।বসার জায়গার রেষারেষি পড়াতেও এলো।প্রথম হওয়ার দৌড়ে কখনও আমি কখনও ও জিততো।সন্ধি হলো আঁকা পরীক্ষায় যখন আমি রং নিয়ে যেতে ভুলে যাওয়ায় খুব কাঁদছি।ওই আমাকে কাছে এসে কান্নার কারন জিগ্গ্যেস করে জানতে পেরে রঙ দেয়।নেবো কি নেবোনা ভাবছিলাম দেখে বলেছিল বন্ধু হবি।সেই থেকে আমরা বন্ধু।দুজন দুজনকে যেমন ভালোবাসতাম তেমনি ঝগড়াও করতাম পাল্লা দিয়ে।টিফিন খেতাম একসাথে তবে বাকি সবকিছুতেই প্রতিযোগিতা চলতো।দুজনেই এই ব্যাপারটার মজা নিতাম কারন এতে সবকিছুতেই ভালো কিছু করার মানসিকতা তৈরী হতো।একে অন্যের সাফল্যে খুশিই হতাম।আমাদের বন্ধুত্ব ক্লাস নাইন অবধি খুব ভালো থাকলেও তারপরে ওর গুরুত্ব আমার কাছে কমতে থাকে।আগে সব কথা ওকে বলে তবে শান্তি হতো কিন্তু তখন ওর কাছে লুকোতে শিখে গেছি।আমার জীবনে তখন প্রেমের ছোঁয়া।প্রথম প্রথম ছেলেটির কথা ছেলেটিকে ভালোলাগার কথা বলতাম কিন্তু ও বাধা দিত শুনতে চাইতো না রেগে যেতো তাই ওর থেকে লুকিয়ে যাওয়াই ঠিক মনে হলো।

যা হওয়ার তাই প্রেমে ধোঁকা খেয়ে নিজের ভুল বুঝতে পারলাম।যখন নিজেকে আবার খুব একলা লাগলো, জীবন থেকেই পালাতে চাইলাম আবার আমাকে সাথ দিল সুজন।ক্ষমা চাওয়ার মুখটুকুও ছিলনা তবু ক্ষমা করে দিল।আবার ওর হাত ধরে বাঁচতে শিখেছি।নিজের পছন্দের বিষয় বাংলা নিয়ে পড়েছি সবার আপত্তি সত্ত্বেও শুধু ও আমাকে আমার চলার পথে বাধা সরিয়ে সাহসী হওয়ার মনোবল দিয়েছে।পড়া শেষ করে বাড়ির লোক যখন বিয়ের জন্য দৃঢ় প্রতিজ্ঞ তখনই সুজনের হাত ধরে বাড়ি ছাড়ি চাকরির খোঁজে।থানা পুলিশ সব কিছু হার মেনেছে আমার জেদের কাছে।বাড়ীতে জানিয়েছিলাম আগে চাকরি তারপরে ভাববো। ভালোবাসা বিয়ে সবকিছু থেকে মন উঠে গেছিল।শুধু মনে হতো আমাকে জীবনে কিছু করতে হবে নিজের জন্য সমাজের জন্য।প্রতি মুহুর্তে সাথ দিয়েছে সুজন।মেসের খবর খোঁজ কোচিং সেন্টার সব কিছু একা দৌড়ঝাঁপ করে ঠিক করেছে…আরো ভালো করে কাছ থেকে চিনতে পারি ওকে।যখন যা দরকার মুখে বলার আগেই এসে যেতো।আমি কি পছন্দ করি না করি সবটাই কি করে যেন বুঝে গেছিল।অসুস্থ হলে পাশে থেকেছে খোঁজ খবর করা থেকে ডাক্তার ওষুধ সবটা করেছে।

দুজনে মিলে প্রস্তুতি নিয়েও ও চাকরি পেলো আমার নাম বেরোলোনা।আশা আর চেষ্টা দুটোই কুলুঙ্গিতে তুলে বলেছিলাম হবেনা আমার দ্বারা।তখনও সুজন বুঝিয়ে মনের জোর আত্মবিশ্বাস জুগিয়ে আমার চাকরিটা করিয়েই ছাড়লো।চাকরি পেয়ে বলছিলাম আমি চিরকৃতজ্ঞ তোর কাছে।ধন্যবাদ তো দিতে পারিনা বন্ধু হয়ে,বল কি করতে পারি তোর জন্য।

ও হেসে বলেছিল, "এই তো এতো কিছু করলি,আবার কি করবি?"

অবাক হয়ে জিগ্গ্যেস করলাম, মানে!!!

~তোর স্বপ্ন মানে সেটা আমারও স্বপ্ন আর সেটা পূরণের জন্য তুই এতো কিছু করলি...তোর মনে আছে আমাদের প্রথম বন্ধুত্বের কথা? আমরা একে অপরের শত্রু ছিলাম।তারপর তুই খুব কাঁদলি আমি তোকে হারাতে চাইতাম ঠিকই কিন্তু তোর চোখে জল দেখতে চাইনি বিশ্বাস কর।সেদিনই ঠিক করেছিলাম জীবন থাকতে তোকে কাঁদতে দেবোনা কখনও।তুই প্রেমে পড়লি আমার থেকে দুরে চলে গেলি কষ্ট পেয়েছিলাম তবু তোকে সেভাবে জোর করে আটকাইনি কারন তুই কষ্ট পাবি।আমি তো তোকে সুখী দেখতে চাই রে পাগলী।

-ভালোবাসিস আমায়?

~হয়তো বাসি।হয়তো কেন সত্যিই বাসি।কিন্তু কি জানিস আমি ভালোবেসে ঘর পাততে চাইনা।তোর সাথেও না।বন্ধুত্বের সম্পর্কটা বন্ধুত্বেই থাকতে দে তাকে আর সংসারের পাঁকে জড়াতে চাই না। আমি কোনদিন অন্য কারোর সাথে সংসার করবোনা কারন অন্য কেউ আমাদের সম্পর্কে কালি ছিটিয়ে সন্দেহ করবে তা হতেও দেবোনা।আর তোর খেয়াল কে রাখবে বল....

সেদিনের সুজনের কথার উত্তর আমার কাছে ছিলনা কারন আমি ভালোবাসাতেই বিশ্বাস হারিয়ে ছিলাম কিন্তু সুজনের কথাগুলো শোনার পর নিজেকে বোঝার সময় দিয়েছি সত্যি তো সুজন ছাড়া জীবনটাই অন্ধকার।সুজনের বাবা মা র ভালোবেসে বিয়ে করার পরেও অশান্তি আর পরে বিচ্ছেদের ছাপ ওর মনে দগদগে ক্ষত সৃষ্টি করেছে তাই বিয়েকে ভয় পায়।ভালোবাসলেও তা নিজের কাছেই অস্বীকার করে আমাকে হারাবার ভয়ে।চিরটাকাল তো আমার জন্য এতো কিছু করলো আর আমি ভালোবেসে আমার বন্ধুকে সারাজীবনের মতো আঁচলে বেঁধে রাখতে পারবোনা!!! এইটুকু অধিকার বোধ তো বন্ধুত্বের খাতিরে হয়েই গেছে।...সবটা ভাবার পর আর দেরী করিনি দুই বাড়ির মতেই বিয়ে করেছি, একমাত্র বন্ধুকে জীবন সাথি বানিয়েছি,খুনসুটি আর হাসি ঠাট্টায় বন্ধুত্বে পরিপূর্ণ আমাদের দাম্পত্য জীবন।

=============================================================

bengali@pratilipi.com
080 41710149
সোশাল মিডিয়াতে আমাদের ফলো করুন
     

আমাদের সম্পর্কে
আমাদের সাথে কাজ করুন
গোপনীয়তা নীতি
পরিষেবার শর্ত
© 2017 Nasadiya Tech. Pvt. Ltd.